খালেদা জিয়ার যে তিনটি রোগ নিয়ে চিন্তিত ডাক্তাররা

0
9

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, ঢাকা :: রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে।

সোমবার বিকালে খালেদা জিয়াকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয় বলে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন যুগান্তরকে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, আলহামদুলিল্লাহ। ম্যাডামকে মেডিকেল বোর্ড সদস্যরা দেখার পর সবকিছু পর্যালোচনা করে তাকে বিকাল ৪টা ৪৫মিনিটে সিসিইউর সব সুবিধা সম্বলিত কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। এখানে ডাক্তারদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে তিনি চিকিৎসাধীন আছেন।

হৃদযন্ত্রের বাইরেও এসব রোগের উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়ার চিকিৎসকরা তাকে বিদেশ নেওয়ার সুপারিশও করেছিলেন অন্তত ছয়বার। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে সাড়া না মেলায় দেশেই চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।

এখন কী তার অন্য রোগের চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার আবেদন করা হবে কী-না সে বিষয়ে এখন কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

বেগম জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে পরিবারের পক্ষ থেকে নতুন করে কোনো আবেদন করা হয়নি। আবার আবেদন করা হবে কী না সেটিও নিশ্চিত নয়।

সোমবার নিজ দপ্তরে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, খালেদা জিয়ার যে চিকিৎসা প্রয়োজন সেটি তিনি যে হাসপাতালে আছেন সেখানে থেকেই পাচ্ছেন। তার আর যেসব অসুখ আছে, তার কয়েকটা সেরে ওঠার মতো না। সেগুলোর চিকিৎসা করে কমিয়ে রাখতে হবে, সেটাই করা হচ্ছে।

গত শুক্রবার রাতে হঠাৎ শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বেগম খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তির দুই দিনের মাথায় অপারেশন করে পেসমেকার বসানো হয়।

খালেদা জিয়ার চিকিৎসকরা জানান, গত শুক্রবার রাতে যখন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন তখন তার হার্টের পালস এক পর্যায়ে ২৫ এ নেমে এসেছিল। তখন ব্লাড প্রেশার নেমে দাড়ায় ৮০/৪০।

চিকিৎসকরা বলেন, এর আগেও সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে হাসপাতালে আনা হলেও এবারের মত শারীরিক অবস্থার অবনতি কখনো হয় নি।

গত রোববার বিকালে পেসমেকার বসানোর পর সোমবার খালেদা জিয়াকে সিসিইউ থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে।

চিকিৎসকরা বলছেন পেসমেকার বসানোর পর সেটি কতখানি কাজ করছে এবং অন্যান্য শারীরিক অবস্থা জানতে বেশ কিছু পরীক্ষা করা হয়েছে সোমবার।

খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ডা. জাহিদ হোসেন বলেন, এই পেসমেকার তো শরীরের সঙ্গে অ্যাডজাস্ট হতে হবে। এটা রোববার বিকাল সাড়ে পাঁচটায় লাগানো হয়েছে। পেসমেকার প্রথম ৭২ ঘণ্টার অবজারভেশন করতে হয়, তারপর ৪২-৪৫ দিন অবজারভেশনে রাখতে হয়।