গৃহহীনদের ঘর হাতুড়ি দিয়ে ভেঙেছে ষড়যন্ত্রকারীরা: প্রধানমন্ত্রী

0
12

করোনার কারণে সামাজিক জীবনে অনেক সীমাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে। বন্ধ অনেক রাজনৈতিক বৈঠক, সভা-সমাবেশ। আওয়ামী লীগের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠক হয়, সাধারণত দুই-তিন মাস পরপর। মহামারির কারণে এবার সেটি হলো প্রায় এক বছর পর।

বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) গণভবনে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

বক্তব্যের শুরুতে শেখ হাসিনা বলেন, করোনাকালে অনেক রাজনৈতিক দল শুধু টেলিভিশনে বক্তৃতা-বিবৃতি আর আওয়ামী লীগের সমালোচনায় ব্যস্ত। তারা মানুষের জন্য কোনো কাজ করেনি।

স্বাস্থ্যকর্মী, প্রশাসন এবং দলের নেতাকর্মীরা আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করছে জানিয়ে তাদের ধন্যবাদ দেন প্রধানমন্ত্রী।

সরকারপ্রধানের বক্তব্যে উঠে আসে মুজিববর্ষে গৃহহীনদের ঘর প্রসঙ্গও। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যখনই ঘর ভাঙার তথ্য পেয়েছি। সম্পূর্ণ সার্ভে করিয়েছি। কারা এর সঙ্গে জড়িত, প্রত্যেকের নাম-ঠিকানাসহ পেয়েছি। তবে কিছু জায়গায় অতিবৃষ্টির কারণে মাটি দেবে ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। নয় জায়গায় আমরা দুর্নীতি খুঁজে পেয়েছি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তৃণমূল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের শক্তিশালী সংগঠন থাকায় করোনা মহামারির ভয়াবহতা মোকাবিলা করা সম্ভব হয়েছে।

দুষ্টুবুদ্ধির লোকদের বিষয়ে নেতাকর্মীদের সজাগ থাকতে বলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। পরে সাম্প্রতিক সময়ে মারা যাওয়া নেতাকর্মীদের স্মরণে শোকপ্রস্তাব আনা হয়।ড