চট্টগ্রামে ঠান্ডা যুদ্ধে অবতীর্ণ আইনজীবী সমিতি – জেলা প্রশাসন।

0
423


সেলিম চৌধুরী . সিএনএন বাংলাদেশ ঃ- চট্টগ্রাম পরীর পাহাড় খ্যাত কোর্ট বিল্ডিং এলাকার কতৃত্ব নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে জেলা আইনজীবী সমিতি ও জেলা প্রশাসক। আইনজীবীদের জন্য চেম্বার ভবন নির্মাণকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যেকোন সময় এটির বিস্ফোরণ ঘটেতে পারে বলে সংশিষ্টদের আশংকা।
সূত্র জানায় সাম্প্রতিক সময়ে চট্টগ্রাম কোর্ট বিল্ডিং এলাকায় আইনজীবি সমিতির নির্ধারিত স্হানে চেম্বার ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেয় চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতি। এতে বাঁধ সাজে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক। তিনি আদালত এলাকায় আইনজীবি চেম্বার ভবন নির্মাণ উদ্যোগ এর খবর পেয়ে ২ সেপ্টেম্বর স্হানীয় দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞাপন আকারে একটি সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তি জারি করেন। বিজ্ঞপ্তিতে কোর্ট বিল্ডিং এলাকায় কোন ধরনের স্হাপনা নির্মাণ করলে কঠোর আইন প্রয়োগের হুশিয়ারি দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক। এনিয়ে আইনজীবীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের এমন বিজ্ঞপ্তি প্রচারের জেরে ক্ষোভে ফুঁসে উঠছে চট্টগ্রামের আইনজীবীগন, তাদের মতে জেলা আইনজীবী সমিতির নির্ধারিত স্থানে ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়ার পরে জেলা প্রশাসকের এমন বিজ্ঞপ্তি প্রচার উস্কানিমূলক ও বিভ্রান্তিকর ও বাড়াবাড়ি হিসেবে দেখছে আইনজীবী সমিতি।
যেকোনো মূল্যে ভবন নির্মাণ করতে বদ্ধপরিকর
বলে জানান আইনজীবি নেতারা। জেলা প্রশাসকের এ ধরনের বাড়াবাড়ি কোনভাবেই মেনে নিতে নারাজ আইনজীবী নেতারা।
এদিকে পত্রিকায় সতর্ককীকরণ বিজ্ঞপ্তি প্রচারের পর আইনজীবীদের মধ্যে উত্তেজনার খবরে জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে অতিরিক্ত পুলিশ ও সশস্ত্র আনসার মোতায়ন করেছে প্রশাসন।
রীতিমত পুলিশ পাহাড়ায় অফিস করছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এএইচ এম জিয়া উদ্দীন বলেন — জেলা আইনজীবী সমিতি আইনজীবিদের দীর্ঘদিনে দাবীর প্রেক্ষিতে সমিতির নির্ধারিত স্থানে চেম্বার ভবন নির্মাণ করার উদ্যোগ নিয়েছে এতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক অযাচিত ভাবে হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে , যা মোটেই কাম্য নয়।
এ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মমিনুর রহমান কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন —-
গতকিছু দিন আগে স্হানীয় এক দৈনিক পত্রিকায় আইনজীবী সমিতির একটি টেন্ডার আহ্বান আমার নজরে আসে, এতে দেখলাম কোর্ট হিল এলাকায় ভবন নির্মাণ করা হবে,যেহেতু পাহাড়ী শ্রেনীর এই এলাকাটিকে সিভিল ডিফেন্স কতৃপক্ষ অধিক ঝুকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে তাই আগে থেকে সতর্কীকরন গন বিজ্ঞপ্তি দিয়েছি। যাতে কেউ এই এলাকায় কোন ধরনের অবৈধ স্থাপনা না করে। এতে কোন পক্ষ
ক্ষুব্ধ হলে আমার বলার কিছুই নেই।
এদিকে উদ্ভুদ্ধ পরিস্থিতিতে জেলা আইনজীবী সমিতি সাধারণ সভা আহবান করেছে।