জমি লিখে না দেয়ায় অমানবিক অত্যাচার দুই ছেলের, কান্নায় ভেঙে পড়লেন বৃদ্ধ বাবা

0
125

গাজীপুরে বাড়ি লিখে না দেয়ায় বৃদ্ধ পিতাকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে দুই ছেলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ছেলে ও পুত্রবধূদের আসামি করে মামলা করার ১০দিনেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে, মামলা করায় উল্টো বাড়ি থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তাদের বাবা। সন্তানের করা নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে বিচার চেয়েছেন সত্তর বছর বয়সী বাবা জহিরুল হক। ছেলেদের জমি লিখে না দেয়ার অপরাধে দিনের পর দিন তাকে সহ্য করতে হয়েছে নির্যাতন। সবশেষ মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় থানায় মামলা পর্যন্ত করতে হয়েছে তাকে। নগরীর কামারজুরী এলাকার ব্যবসায়ী ছেলে একরামুল হক সেলিম ও ইঞ্জিনিয়ার আনোয়ার হোসেন, পুত্রবধূ লুৎফর নাহার লতা ও নুরুন নাহার নিপাকে আসামি করা হয়েছে।আসামি করে গত ১৩ জুলাই মামলা করেন তিনি। মামলা করায় আরো বিপাকে পড়তে হয়েছে তাকে। হত্যা হুমকিতে বাড়ি থেকে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন মেয়ের শ্বশুর বাড়িতে।আরো পড়ুনঃ যৌতুকের জন্য দুধের শিশুকে বিক্রি, তবুও বন্ধ হয়নি অত্যাচার বৃদ্ধ জহিরুলের মেয়ে বলেন, তাদের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আমার বাবা পালিয়ে চলে এসেছে।জীবন সায়াহ্নে আশা এমন বাবার ওপর নির্মম নির্যাতনের ঘটনায় এলাকাবাসী সুষ্ঠু বিচার চান।পুলিশ নির্যাতনের বিষয়টি স্বীকার করে অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান চলছে বলে জানায়।ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইসমাইল হোসেন বলেন, বৃদ্ধ অভিযোগ করেছে। মামলা নেয়া হয়েছে। আসামিদের ধরতে আমরা তৎপর রয়েছি।রাজধানীর প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও হোটেলে চাকরি করা জহিরুল বারো বছর আগে অবসরে যান। সঞ্চয় করা অর্থ দিয়ে গাজীপুরে পাঁচ কাঠা জায়গা কিনে বাড়ি করেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে