ত্রাণের কার্ড দিতে চেয়ে গৃহবধূকে ধর্ষণ

0
142

ত্রাণের কার্ড পাইয়ে দেবার আশ্বাস দিয়ে কৌশলে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে। বুধবার (১৭ জুন) দুপুরে ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে অভিযুক্ত যুবলীগ কর্মীকে আসামীকে করে থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন।

গত ১৫ জুন রাতে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার বরাবর ইউনিয়নের রসূলপুর এলাকায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। সেখানে ত্রাণের কার্ড আনতে আশ্বাস দেয়া ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হন তিনি।

মামলার এজাহারে ওই গৃহবধূ অভিযোগ করেন, করোনা দুর্যোগকালীন সময়ে আর্থিক অভাব অনটনের অবস্থার সুযোগে ত্রাণের কার্ড পাইয়ে দেবার কথা বলে স্থানীয় বাসিন্দা মজিবুর তাকে গত বেশ কিছুদিন ধরে নিজ থেকেই নানাভাবে আশ্বাস দিয়ে আসছিলো। গত ১৫ জুন রাতে মজিবুর তাকে ত্রাণের কার্ড নিয়ে যেতে তার বাড়িতে ডেকে নেয়। ওই গৃহবধূ সরল বিশ্বাসে মজিবুরের বাড়িতে গেলে ফাঁকা বাড়িতে জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করে তাড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনার দুইদিন পর বুধবার রূপগঞ্জ থানায় স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে লিখিত অভিযোগের মাধ্যমে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান সিএনএন নিউজকে বলেন, ভুক্তভোগী নারী দুপুরে থানায় এসে ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে আইনের আশ্রয় চান। পরে তার অভিযোগ আমলে নিয়ে মামলা গ্রহণ করা হয়।

ওসি আরো বলেন, অভিযুক্ত মজিবুর স্থানীয় যুবলীগের একজন কর্মী। এই পরিচয়ের প্রভাব খাটিয়ে ওই নারীকে ত্রাণের কার্ড পাইয়ে দেবার প্রলোভন দেখায়। পরে কৌশলে তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে।

ওসি বলেন, এ ঘটনায় আসামীকে এখনও গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশের একাধিক টীম অভিযান অব্যাহত রেখেছে। শিগগিরই আসামীকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে। রাজনৈতিক পরিচয় থাকলেও সে গুরুতর অপরাধী। তাকে কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে