পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগে টেকনোলজিস্ট-টেকনিশিয়ান নিয়োগ বাতিল

0
6

পরীক্ষায় অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে দীর্ঘদিন স্থগিত থাকা মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, মেডিকেল টেকনিশিয়ান ও কার্ডিওগ্রাফার পদে নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি জানান, পত্রপত্রিকায় অনিয়মের অভিযোগে আমরা নিয়োগটি স্থগিত করে তদন্ত শুরু করি। এরপর তদন্ত প্রতিবেদনেও অনিয়মের বিষয়টি উঠে এসেছে, ফলে পরীক্ষাটি বাতিল করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এর আগে গতকাল (২০ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব আনজুমান আরা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, উপযুক্ত বিষয়ে জানানো যাচ্ছে যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন মেডিকেল টেকনোলজি, মেডিকেল টেকনিশিয়ান ও কার্ডিওগ্রাফার পদে নিয়োগে দুর্নীতির বিষয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত করার জন্য স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ কর্তৃক কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি থেকে দাখিলকরা তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধিদপ্তরের আওতাধীন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, মেডিকেল টেকনিশিয়ান ও কার্ডিওগ্রাফার পদে জনবল নিয়োগের বিষয়ে নিচের নির্দেশনা দিয়েছেন।

যেহেতু তদন্ত প্রতিবেদনে লিখিত পরীক্ষার খাতায় অস্পষ্টতা পাওয়া গেছে মর্মে উল্লেখ রয়েছে, সেহেতু বর্ণিত নিয়োগ কার্যক্রম বাতিল পূর্বক পুনরায় নতুন নিয়াগে অল্পসময়ে বিজ্ঞপ্তি প্রদান করে দ্রুত নিয়োগের ব্যবস্থা করা হোক। ইতোপূর্বে যারা আবেদন করেছেন তাদের নতুনকরে আবেদনের প্রয়োজন নেই। তারা নতুন নিয়াগে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।

এতে আরও বলা হয়েছে, নিয়ম অনুযায়ী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন ৩য় শ্রেণির কর্মচারিদের নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ অবস্থায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আওতাধীন মেডিকেল টেকনোলজি, মেডিকেল টেকনিশিয়ান ও কার্ডিওগ্রাফার পদে জনবল নিয়োগের লক্ষ্যে মন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হল।

জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে বর্তমানে ২৫ হাজার ৬১৫ জন চিকিৎসক কাজ করছেন। মানদণ্ড অনুযায়ী, এক্ষেত্রে মেডিকেল টেকনোলজিস্টের পদের সংখ্যা হওয়ার কথা এক লাখ ২৮ হাজার ৭৫টি। কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে মেডিকেল টেকনোলজিস্টের পদ আছে সাত হাজার ৯২০টি। এর বিপরীতে কর্মরত আছেন আরও কম, পাঁচ হাজার ১৮৪ জন। প্রতি ১০ হাজার মানুষের জন্য শূন্য দশমিক ৩২ জন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট কাজ করছেন।

আর ল্যাব টেকনোলজিস্টের দুই হাজার ১৮২টি পদের মধ্যে এক হাজার ৪১৭ জন কর্মরত আছেন। নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজটি করেন ল্যাব টেকনোলজিস্টরা।