পুলিশি নির্যাতনে হাজতির মৃত্যুর অভিযোগ

0
5

বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শেবাচিম) চিকিৎসাধীন অবস্থায় রেজাউল করিম (৩০) নামে এক হাজতির মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (২ জানুয়ারি) রাত ১২টা ৫ মিনিটে তার মৃত্যু হয়। পরিবারের অভিযোগ, পুলিশের নির্যাতনে মৃত্যু হয়েছে তার। এ ঘটনার বিচার দাবি করেছেন নিহতের স্বজনরা। হাসপাতালের পরিচালক বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি। অভিযোগ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার।মৃতের স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরীর ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের নিজ বাড়ি সংলগ্ন সাগরদী হামিদ খান সড়কের পাশের একটি চায়ের দোকানে বসা ছিলেন রেজাউল করিম। এ সময় নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক মহিউদ্দিন তাকে মাদকের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করে। তার কাছ থেকে ১৩৮ গ্রাম গাঁজা এবং চার পিস নেশাজাতীয় ইনজেকশন উদ্ধারের দাবি করে ওই দিন রাত সাড়ে ১১টায় কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে পরদিন শুক্রবার (১ জানুয়ারি) তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।স্বজনদের অভিযোগ, পুলিশের নির্যাতনেই তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন তারা।এদিকে বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মো. শাহ আলম জানান, শারীরিক ক্ষত নিয়ে জেলখানায় পাঠানো হয়েছিল রেজাউলকে। তবে বিষয়টিকে স্পর্শকাতর উল্লেখ করে এ ঘটনায় কিছুই বলতে রাজি হননি শেরেবাংলা মেডিকেলের পরিচালক ডা. মো. বাকীর হোসেন। এ ঘটনা তদন্ত করে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেছেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান।উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় কারা হাসপাতালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাতে রেজাউল করিম গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে ওইদিন রাত ৯টা ৩৫ মিনিটে তাকে শেবাচিমে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।