ফ্রান্সে ইসলামবিদ্বেষকে উসকে দিয়ে আইন পাস

0
9

বাক স্বাধীনতা এবং ধর্মনিরপেক্ষতার মোড়কে ফ্রান্সে কট্টর ইসলামপন্থার বিরুদ্ধে নতুন আইন পাস করা হয়েছে। এই আইনের শিরোনাম দেওয়া হয়েছে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদবিরোধী বিল’। তবে ফ্রান্স এবং এর বাইরে অনেক সমালোচক ম্যাক্রোঁ সরকারকে দুষছেন যে ধর্মকে টার্গেট করতেই এই আইন ব্যবহার করা হবে।বুধবার (৯ ডিসেম্বর) এই বিলের পক্ষে সাফাই গাইতে গিয়ে ফরাসি প্রধানমন্ত্রী জঁ ক্যাস্টেক্স বলেন, এই আইনে ধর্মীয় স্বাধীনতাকে হরণ করা হবে না। কিন্তু এটি দিয়ে ইসলামি চরমপন্থার মতো ঘৃণ্য মতাদর্শকে মোকাবেলা করা হবে।ধর্মীয় উগ্রবাদ থেকে মুক্তি, সুরক্ষা ও স্বাধীনতার জন্য এই আইনের প্রস্তাব বলে তিনি বর্ণনা করেন।এই আইনের অধীনে গোপনে চলা যেসব স্কুল ইসলামি আদর্শ প্রচার করে সেগুলোর উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা এবং হোম-স্কুলিং বা বাড়িতে শিক্ষার বিষয়টির উপর কড়াকড়ি আরোপ হবে। আইনটি বহুবিবাহের উপরও নিষেধাজ্ঞা দেবে। এর আওতায় একাধিক স্ত্রী রয়েছে এমন আবেদনকারীকে ফ্রান্সে বসবাসের অনুমতি দেয়া হবে না। যেসব চিকিৎসক মেয়েদের কুমারীত্ব পরীক্ষা করবেন তাদের উপর নিষেধাজ্ঞা বা জরিমানা হতে পারে।এই আইনে মুসলিম সংস্থাগুলোর আর্থিক স্বচ্ছতার বিষয়ে নতুন নিয়ম আসবে এবং তহবিল পেতে হলে তাদেরকে ফ্রান্সের ‘প্রজাতন্ত্রের মূল্যবোধে’ সমর্থন করতে হবে। কর্মক্ষেত্রে ধর্মীয় পোশাক পরিধানের উপর যে নিষেধাজ্ঞা ছিল সেটির আওতা বাড়ানো হবে। এই নিষেধাজ্ঞা এখন থেকে যানবাহন কর্মী, সুইমিং পুল এবং মার্কেটে যাওয়ার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।ফ্রান্সে ৪০ লাখের মতো মুসলমান বসবাস করেন, যা মোট জনসংখ্যার ৪ শতাংশ। উত্তর ও পশ্চিম আফ্রিকায় মুসলিমপ্রধান সাবেক ফরাসি উপনিবেশ থেকে তারা এখানে এসেছেন।দেশটিতে ব্যাপক মুসলিমবিদ্বেষ রয়েছে। ইসলামকে তারা ফরাসি মূল্যবোধের বিপরীত আদর্শ বলে মনে করে। এর আগে, বোরকা নিষিদ্ধের ছয় বছর পর ২০০৪ সালে ফ্রান্সের স্কুলে হিজাব পরাও বন্ধ ঘোষণা করা হয়।সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে