বঙ্গবন্ধুর কাজ সমাপ্ত করতে বর্তমান সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ।

0
17


বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ চট্টগ্রাম মহানগর শাখার উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা সাবেক ছাত্রনেতা দিদারুল আলম দিদারের সভাপতিত্বে ও মহানগর আওয়ামী যুবলীগ সদস্য সাখাওয়াত হোসেন সাকু’র পরিচালনায় অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী যুবলীগ সদস্য ও ৩৩ নং ফিরিঙ্গীবাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, সাবেক ছাত্রনেতা দিদারুল আলম দিদার, ওয়াহিদুল আলম শিমুল, গিয়াস উদ্দিন, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী যুবলীগ সদস্য জাবেদুল আলম সুমন, খোরশেদ আলম রহমান, নঈম উদ্দিন খান, তানভীর আহমেদ রিংকু, শহীদুর রহমান শহীদ, সাবেক ছাত্রনেতা, হুমায়ুন কবির মাসুদ, তাজউদ্দিন রিজভী, জসিম উদ্দিন মিঠুন, শাহজাদা মাসুদ আকবরী, মো. ইসমাঈল, এস.এম নাছির, এড. মো. কায়সার, সাহেদ হোসেন টিটু, পেয়ার মো. পেয়ারু, জাহাঙ্গীর আলম, এড. দীপক নাথ, রাজু আহমেদ, মামুনুর রশীদ মামুন, এড. আখতারুজ্জামান রুমেল, দিদারুল ইসলাম রুবেল, ফরমান উল্লাহ অপু, রিদোয়ান ফারুক, এড. মন্জুরুল আযম চৌধুরী মন্জু, আতিকুর রহমান আতিক, হেলাল উদ্দিন আহমেদ, মো. আবু সুফিয়ান, সাইফুল আলম লিমন, এড. ইমতিয়াজ সোহেল, এড. টিপু শীল জয়দেব, মাকসুদুর রহমান মাসুদ, ডা. বাবর চৌধুরী বাবু, ওসমান গনি, আলোড়ন বিশ্বাস ফ্লাওয়ার,কামরুজ্জামান, তানভীর হোসেন শাওন, নুর মো. নাজমুল, শহিদুল ইসলাম মিন্টু, রিপন বিশ্বাসসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
আলোচনা সভায় জাতির পিতার জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবস-২০২১ উপলক্ষ্যে নেতৃবৃন্দ সব শিশু, দেশের সব নাগরিকদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, এবারের জাতীয় শিশু দিবসের প্রতিপাদ্য ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন, শিশুর হৃদয় হোক রঙিন।’ নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে শিশু আইন প্রণয়ন ও প্রাথমিক শিক্ষাকে বাধ্যতামূলক করেন। আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়ন ও সুরক্ষার বিভিন্ন কার্যক্রমের সঙ্গে জাতীয় শিশু নীতি-২০১১, শিশু আইন-২০১৩, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭ প্রণয়ন করেছে। এছাড়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিক শিশু দিবস উদযাপন, সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের পুনর্বাসন এবং বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুর বিকাশ কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের বিনা মূল্যে পাঠ্যপুস্তক প্রদান করা হচ্ছে। প্রায় শতভাগ শিশু স্কুলে যাচ্ছে।সরকার শিশুদের জন্য জাতির পিতার জীবন ও কর্মভিত্তিক বই প্রকাশ এবং পাঠ্যবইয়ে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস সংযোজন করেছে। সব শিশুর সমঅধিকার নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছে। আর এ লক্ষ্য বাস্তবায়নে পিতা-মাতা, পরিবার ও সমাজের ভূমিকা অপরিসীম। শিশুর প্রতি সহিংস আচরণ এবং সব ধরনের নির্যাতন বন্ধ করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।
সভা শেষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল এবং কেক কাটার মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠানের পরিসমাপ্তি হয়।