বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা নিহত

0
7

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে বিজিবি সঙ্গে গোলাগুলিতে দু’জন নিহত হয়েছে। রোববার ( ৭ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ঘুমধুম ইউনিয়নের গর্জনবুনিয়া চাকমাপাড়ার পাহাড়ের ঢালুতে এ গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।Eবিজিবির দাবি, নিহতরা ইয়াবা ব্যবসায়ী। তাদের কাছ থেকে এক লাখ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় দুই বিজিবি সদস্য আহত হয়েছেন।সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে কক্সবাজারস্থ ৩৪ বিজিবির অধিনায়কের পক্ষে সহকারী পরিচালক মো. ইয়ার হোসেন এক বার্তায় জানান, কতিপয় ইয়াবা ব্যবসায়ীরা মিয়ানমার থেকে বিপুল পরিমাণ মাদক বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির একটি দল ঘুমধুম ইউনিয়নের গর্জনবুনিয়া চাকমাপাড়া পাহাড়ি ঢালুতে অবস্থান নেয়। রাতে ৫/৬ জনের ১টি দল পাহাড়ি এলাকা দিয়ে আসতে দেখে বিজিবি তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করে। কিন্তু তারা দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে বিজিবিকে এলোপাতাড়ি গুলি বর্ষণ শুরু করে। এসময় বিজিবিও তাদের জান-মাল রক্ষার্থে পাল্টা গুলি করে।এক পর্যায়ে অজ্ঞাতনামা পাহাড়ি জঙ্গলের ভিতরে পালিয়ে যায়। পরে বিজিবির টহল দল ঘটনাস্থল থেকে এক লাখ ইয়াবা, দেশিয় তৈরি ২টি একনলা বন্দুক, ৪টি কাতুর্জ ও ২টি খালি খোসা উদ্ধার করে। এছাড়াও অজ্ঞাতনামা গুলিবিদ্ধ ০২ জনকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষণা করেন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আহত ব্যক্তিদেরকে উদ্ধার করে উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নাম ও ঠিকানা পাওয়া যায়নি বলেও জানান তিনি। নিহতরা হলেন, উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া ক্যাম্প-১, ব্লক-বি/৩ এর ফোরকান আহমেদের ছেলে জোবায়ের (২৮) ও ব্লক-সি এর মৃত আমি হামজার ছেলে দীল মোহাম্মদ (২৫)।এছাড়াও গোলাগুলির ঘটনায় ০২ জন বিজিবি সদস্য আহত হয়। আহত বিজিবি সদস্যদের উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়। এ ব্যাপারে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানায় বিজিবি’র কর্মকর্তা।