রাতে ঘড়ির কাঁটা ১২টা স্বাগতম ২০২২

0
14

নতুন এসে গেছে। নতুনকে জায়গা দিতে হবে। পেছনে তাকানোর সময় কী আর আছে। তাইতো মনোরম দৃশ্যে আঁকা শিল্পীর তুলির আঁচড়ের বর্ষপঞ্জটিকে ছেড়ে দিতে হলো জায়গা। উত্থান-পতন পেরিয়ে অতীতের খাতায় চিরতরে জমা হলো ২০২১ সাল। 

বছরের শেষ দিনের সূর্যাস্ত যেতেই শুরু হয় নতুন বছরের প্রহর গোনা। অবশেষে এলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। শনিবার (১ জানুয়ারি) রাতে ঘড়ির কাঁটা ১২টা ছুঁতেই বদলে গেলো ঘরের কোণায় ঝুলে থাকা ক্যালেন্ডার। 

আমাদের দোরগোড়ায় এরই মধ্যে এসে দাঁড়িয়েছে ইংরেজি নতুন বছর। স্বাগত ২০২২। 

২০২১ সালের চলে যাওয়ার মধ্য দিয়ে অসীমের পানে মহাকালের যে যাত্রা, সেখানে সূচিত হলো আরেকটি মাইলফলক। এই যে মহাকালের যাত্রা, সেখানে একেকটি বছর আসে নতুন উদ্দীপনা ও প্রেরণা নিয়ে। আমরা মুছে ফেলি গত হয়ে যাওয়া বছরের গ্লানি। উৎসাহ খুঁজে পাই সুখকর ঘটনাগুলো থেকে, তারপর এগিয়ে যাই অগ্রগতির দিকে। 

সে উপলক্ষেই করোনা মহামারির মধ্যেও জমকালো আতশবাজি আর আলোকসজ্জায় দেশে দেশে বরণ করে নেওয়া হয়েছে খ্রিস্টিয় নতুন বছর ২০২২। নানা সংকট, সংঘাত, পীড়নের মধ্যেও বেঁচে থাকার নতুন স্বপ্ন, লড়াই করার নতুন উদ্দীপনা আর সংকট পেরোনোর নতুন প্রত্যাশা নিয়ে মানুষ বরণ করেছে নতুন বছরকে।নতুন এই বছর অফুরান প্রত্যাশা নিয়ে এসেছে সবার কাছে। এই নতুন হোক উত্তরণের, কালের যাত্রায় এগিয়ে চলার। নতুনের আবাহনে জেগে উঠুক সমগ্র দেশ, বিশ্ব। ২০২২ সাল মানুষের জীবনে বয়ে আনুক সুখ ও সমৃদ্ধি।