রোগীদের সেবা দিতে হাসপাতালে সুইডেনের রাজকুমারী

0
195

গোটা বিশ্বের সঙ্গে ইউরোপের দেশ সুইডেনেও লড়ছে করোনার বিরুদ্ধে। সেই লড়াইয়ে রাজপ্রসাদ থেকে বেরিয়ে এসে হাসপাতালে তিনি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করছেন মানুষের সেবা। রাজধানী স্টকহোমের এক হাসপাতালে অন্যদের সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করা এই নারী হলেন সুইডেনের রাজকুমারী সোফিয়া।

করোনাভাইরাসের এই সংকট কােলে অনলাইনে একটি কোর্স করার পর স্টকহোমের সোফিয়াহেমেট হাসপাতালে কাজে যোগ দিয়েছেন পঁয়ত্রিশ বছর বয়সী রাজকুমারী সোফিয়া। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অংশ নিতেই এমন পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন তিনি।


তবে রাজকুমারী সোফিয়া সরাসরি ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় অংশ নেবেন না। বরং হাসপাতালে চিকিৎসক ও নার্সদের সহযোগী হিসেবে নানান কাজ করবেন। এছাড়া তিনি হাসপাতাল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত করার কাজ, যন্ত্রপাতি পরিষ্কার, রান্নাঘরে সহযোগিতার মতো কাজ করবেন।

যাদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার কোনো পূর্বঅভিজ্ঞতা নেই অথচ স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কাজ করতে চান এমন ৮০ জনকে হাসপাতালটি প্রতি সপ্তাহে অনলাইনে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। চাইলে সবাই সেই প্রশিক্ষণ নিতে পারেন। তেমনই প্রশিক্ষণ নিয়েছেন সোফিয়া।

দেশটির হাসপাতালগুলো চাইছে আরও বেশি করে মানুষ তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসুক। কারণ করোনার প্রকোপ শুরু হতেই হাসপাতালগুলোতে চাপ বেড়েই চলেছে। ফলে যারা সরাসরি চিকিৎসার কাজে যুক্ত তাদের অন্য কাজগুলোর চাপ কমাতেই এমন উদ্যোগ।

রাজপ্রাসাদ ছেড়ে সোফিয়ার এমন উদ্যোগ প্রশংসা কুড়াচ্ছে ইন্টারনেট দুনিয়ায়। তার প্রথম দিনের কাজের কিছু ছবিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে পোস্ট করা হয়। যেখানে তাকে হাসপাতালের ইউনিফর্ম পরে সহকর্মীদের সঙ্গে কাজ করতে দেখা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, চল্লিশ বছর বয়সী যুবরাজ কার্ল ফিলিপের স্ত্রী হলেন সোফিয়া। কার্ল ফিলিপ সুইডেনের রাজ সিংহাসনের চতুর্থ উত্তরাধিকার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে