শুক্রবার সর্বোচ্চ আক্রান্ত, শনিবার লকডাউন প্রত্যাহার পাকিস্তানে

0
208

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী যেদিন লকডাউন প্রত্যাহারের ঘোষণা দিলেন সেদিন সর্বোচ্চ কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয়। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী আগামীকাল শনিবার থেকে লকডাউন প্রত্যাহারের নির্দেশনা কার্যকর হবে। অথচ আজ শুক্রবার দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্তের রেকর্ড হয়েছে।

সিএনএন এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় পাকিস্তানে নতুন করে ১ হাজার ৭৬৪ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মহামারি নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হলেন ২৫ হাজার ৮৩৭ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ৫৯৪ জন মারা গেছেন।

পাকিস্তানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে দেওয়া নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে শুক্রবার এ তথ্য দিয়েছে। দেশটি এখন পর্যন্ত আড়াই লাখের বেশি সন্দেহভাজন রোগীর করোনা পরীক্ষা করেছে। তবে লকডাউন প্রত্যাহারের আগের দিন সর্বোচ্চ আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ বেড়েছে।

করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর নতুন এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে প্রায় ৫ সপ্তাহ ধরে কার্যকর থাকা লকডাউন শনিবার থেকে ধাপে ধাপে প্রত্যাহার হবে বলে বৃহস্পতিবার ঘোষণা দেন ইমরান খান। তার এই ঘোষণার পরদিনে দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যম মানুষের আক্রান্ত হওয়ার খবর এলো।

জাতির উদ্দেশে দেয়া ওই ভাষণে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, লকডাউন প্রত্যাহারের এই সিদ্ধান্ত নেয়ার কারণ হলো; দেশের বিপুল সংখ্যক দারিদ্র জনগোষ্ঠী ও দিনমজুর মানুষ লকডাউনের কারণে তাদের জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতে পারছেন না।

তিনি অবশ্য বলেছেন, ‘আমরা লকডাউন এখনই প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা জানি এই সিদ্ধান্ত এমন এক সময় নিতে হলো যখন ভাইরাসটির সংক্রমণের গতি ঊর্ধ্বমুখী। তবে আমরা যেরকম প্রত্যাশা করেছিলাম, পরিস্থিতি তেমন হচ্ছে না। তাই এমন সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি।’

লকডাউন প্রত্যাহার করে নেয়া হলেও গণপরিবহন চলাচল স্থগিত এবং স্কুল বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি। এছাড়া লকডাউন প্রত্যাহারের কারণে যেসব শিল্প-প্রতিষ্ঠান ফের তাদের কার্যক্রম শুরু করবে, তাদেরকে করোনা প্রতিরোধে সরকারের দেওয়া সব নির্দেশনা মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে