সেন্টার ফর বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালি

0
11

বাংলাদেশ-ভারতের দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়নে বন্ধুপ্রতিম সংগঠন ‘সেন্টার ফর বাংলাদেশ ইন্ডিয়া ফ্রেন্ডশিপ’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হলেন প্রথিতযশা লেখক-সাংবাদিক ও মানবাধিকার সংগঠক শওকত বাঙালি। সিবিআইএফ-এর চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শুভাশীষ সমদ্দার এর নির্দেশনা অনুযায়ী এবং কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার তৌফিকুর রহমান, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান ড. সাজ্জাদ হায়দার, ভাইস চেয়ারম্যান আশালতা বৈদ্য, প্রফেসর ড. মো. সরফুদ্দীন আহমেদ, ড. অরুণ কুমার গোস্বামী, পরিমল চন্দ্র সাহা, মো. নাছির উদ্দিনসহ সংগঠনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মনোনয়নক্রমে তাঁকে এ পদে অধিষ্ঠিত করা হয়েছে।
পদায়ণকারী সংগঠন নেতৃবৃন্দ শওকত বাঙালির মেধা, প্রজ্ঞা, অভিজ্ঞতা সংগঠনকে আরও গতিশীল করবে বলে প্রত্যাশা করেছেন। এদিকে, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মনোনীত করায় ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রীংলা, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত ও সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা বিক্রম দোরাইস্বামী এবং সংগঠন নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি।
উল্লেখ্য, সিবিআইএফ দীর্ঘদিন যাবৎ বাংলাদেশ-ভারত দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক উন্নয়ন কাজ করে যাচ্ছে। আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখার পাশাপাশি দুই দেশের শিল্প ও সংস্কৃতি বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক নেতা শওকত বাঙালি একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং ৮ম জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব, একাত্তর ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান ছাড়াও বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে জড়িত। জাতীয় অধ্যাপক কবির চৌধুরী ও লেখক-সাংবাদিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা শাহরিয়ার কবিরের নেতৃত্বে ৯৬ সালে নির্বাচনী সহিংসতা বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিশন, বিচারপতি কে.এম সোবহান ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবিরের নেতৃত্বে ২০০১ সালে নির্বাচনী সহিংসতা বিষয়ে গঠিত কমিশন, বিচারপতি গোলাম রাব্বানী ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবিরের নেতৃত্বে ২০০৯ সালে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালকে সহযোগিতা করতে প্রতিষ্ঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সহায়ক মঞ্চ, ২০১৭ সালে বিচারপতি শামসুল হুদা ও বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকের নেতৃত্বে গঠিত ‘বার্মায় গণহত্যা ও সন্ত্রাস তদন্তে নাগরিক কমিশন’ এবং ২০২১ সালে বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক ও ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজের নেতৃত্বে গঠিত ‘বাংলাদেশে মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস তদন্তে গণকমিশন’র সদস্য হিসেবে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।
দেশে মুক্তবুদ্ধি চর্চার অগ্রসৈনিক শওকত বাঙালি ১৯৯০ সাল থেকে দেশের শীর্ষস্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতা ছাড়াও পেশাগত জীবনে সাবেক রাষ্ট্রপতি মরহুম মোঃ জিল্লুর রহমানের ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব এবং বিভিন্ন শিল্প গ্রুপের মিডিয়া অ্যাডভাইজার হিসেবে নানা সময়ে দায়িত্ব পালন করেছেন।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর, রাউজানের কীর্তিমান পুরুষ, রাউজান থানা আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও ১১নং পশ্চিম গুজরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং ইউনিয়ন পরিষদের প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এ.কে ফজলুল হক চেয়ারম্যান ও মুক্তিযুদ্ধে সহায়তাদানকারী বীরনারী বেগম লায়লা হকের সুযোগ্য সন্তান শওকত বাঙালি বর্তমানে আন্তর্জাতিক সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বেঙ্গল সলিউশন্স লিমিটেড-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর, অ্যাকটিভ মার্কেটিং (প্রাঃ) লিমিটেড ও অ্যাকটিভ পি.আর’র চেয়ারম্যান, প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান শব্দাঞ্জলী এবং উন্নয়ন সংগঠন আমরা করবো জয়-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক, পোষাক প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান আর্ট’র পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।
বর্তমানে রাজনীতি, সমাজনীতি, ব্যবসা, সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ রেহানার সার্বিক সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতায় তিনি ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চট্টগ্রাম স্মৃতি’ নিয়ে একটি গবেষণাধর্মী প্রকাশনা এবং প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন।
শওকত বাঙালি বিভিন্ন সময়ে পেশাগত, ব্যবসায়িক এবং ব্যক্তিগত আমন্ত্রণে ভারত, নেপাল, ভুটান, সৌদি আরব, আবুধাবী, দুবাই, কাতার, বাহরাইন, থাইল্যান্ড, মালেশিয়া, চীন, ইন্দোনেশিয়া ভ্রমণ করেছেন।