ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করল মরক্কো

0
7

এবার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণা দিল মরক্কো। আমেরিকার মধ্যস্থতায় এই দুই দেশের মধ্যে চুক্তি হতে যাচ্ছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাইরাইন ও সুদানের পর এই সিদ্ধান্ত আসলো মরক্কোর পক্ষ থেকে। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার। Eবিনিময়ে বিতর্কিত পশ্চিম সাহারা অঞ্চল নিয়ে মরক্কোর দাবিকে স্বীকৃতি দিতে সম্মত হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।এ নিয়ে গত চার মাসে চারটি আরব দেশ ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করল। এর আগে মিসর ও জর্ডান ইহুদি রাষ্ট্রটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিল। সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝিতে ট্রাম্পের উপস্থিতিতে হোয়াইট হাউসে ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। পরে অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে তাদের সঙ্গে যোগ দেয় সুদান।বৃহস্পতিবার (১০ ডিসেম্বর) মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক টুইট বার্তায় ঘোষণা দেন, ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সম্মত হয়েছে মরক্কো।তিনি বলেন, ‘আরেকটি যুগান্তকারী অর্জন হল। আমাদের দুই মহান বন্ধু ইসরায়েল এবং কিংডম অব মরক্কো পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে সম্মত হয়েছে। মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি অর্জনের জন্য এটি বিশাল অগ্রগতি।’এর আগে ফিলিস্তিন-ইসরাইলের মধ্যে অসলো চুক্তি সইয়ের পর ১৯৯৩ সালে তেল আবিবের সঙ্গে স্বল্প পরিসরে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে মরক্কো। ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ইসরাইলি নিপীড়ন, নির্মমতা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ২০০০ সালে সেই সম্পর্ক ছিন্ন করে দেশটি।এদিকে চলতি মাসের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে একমত হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত।ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ এবং স্থানীয় রাজনৈতিক দল এবং সংগঠন তাদের এ চুক্তির তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। আমিরাত-ইসরাইল চুক্তি ফিলিস্তিনিদের স্বপ্ন এবং অধিকার বাস্তবায়নে কোনো কাজে আসবে না বলেও দাবি তাদের।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে