বেতন না দিয়ে কারখানায় তালা, মিরপুরের রাস্তায় শ্রমিকরা

0
182

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি থাকলেও তা উপেক্ষা করে বেতনের দাবিতে রাজপথে আন্দোলনে নেমেছেন রাজধানীর মিরপুরের রূপনগরের একটি গার্মেন্টের শ্রমিকরা।

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে রূপনগরের মনির ফ্যাশন গার্মেন্টের শতাধিক শ্রমিক প্রধান সড়ক অবরোধ করে এ বিক্ষোভ শুরু করেন।

আন্দোলনকারী শ্রমিকরা জানান, তিন দফায় সময় নিয়েও মার্চের বেতন পরিশোধ করেনি কর্তৃপক্ষ, সেজন্য আন্দোলনে নেমেছেন শ্রমিকরা। বেতন পরিশোধের জন্য তৃতীয় দফায় বৃহস্পতিবার সময় নেয়া হলেও কারখানার ফটকে তালা দিয়েছে মালিকপক্ষ। তাই শতাধিক গার্মেন্ট শ্রমিক সমবেত হয়ে রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেছেন।

Pallabi

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সরকারের নির্দেশনায় জনচলাচলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা হলেও এ আন্দোলনে তার বালাই পর্যন্ত নেই। সারিবদ্ধ হয়ে রূপনগর মোড়ের রাস্তা অবরোধ করে রেখেছেন শ্রমিকরা।

আন্দোলনকারীরা জানান, করোনাভাইরাসের কারণে সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলে গত ২৫ মার্চ কারখানাটি বন্ধ করে দেয়া হয় বেতন পরিশোধ না করেই। এরপর মালিক মো. মনির হোসেন মার্চের বেতন পরিশোধে তিন দফায় সময় নিলেও এখন পর্যন্ত তা করেননি। করোনার সংকটময় পরিস্থিতিতে না খেয়ে দিন পার করতে হচ্ছে স্বল্প আয়ের শ্রমিক ও তাদের পরিবারকে। ঘরে খাবার না থাকায় শ্রমিকরা বেতন না পেয়ে রাস্তায় নেমেছেন। বেতন না দেয়া পর্যন্ত তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

ADVERTISEMENT

গার্মেন্টটির সুপারভাইজার মো. রাজু জাগো নিউজকে বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে অফিস বন্ধ করে দিয়ে কয়েক দফায় ছুটি বাড়ানো হলেও আমাদের মার্চের বেতন পরিশোধ করা হয়নি। আজ বৃহস্পতিবার তৃতীয় দফায় সময় নিলেও সকালে এসে দেখি গার্মেন্টের ফটকে তালা। এরপর আমরা মালিক মনিরের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আজ বেতন দেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Pallabi

রাজু বলেন, বেতন না পাওয়ায় আমরা না খেয়ে দিন পার করছি। পেটের ক্ষুধায় আর ঘরে থাকতে না পেরে করোনাভাইরাসের ভয় না করে আন্দোলন শুরু করেছি।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত ডিএমপির মিরপুর বিভাগের পল্লবী জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, বেতন না পেয়ে গার্মেন্ট শ্রমিকরা রাস্তা অবরোধ করে আন্দোলন শুরু করেছেন। আমরা মালিকপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে ঘটনার সুরাহা করার চেষ্টা চালাচ্ছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে