ইরির বাম্পার ফলন, প্রভাবশালীদের কারণে ধান উঠছে না ঘরে

0
166

খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা, আমিরপুর এবং ভান্ডারকোট ইউনিয়নে এবার ইরি ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। কিন্তু বৃষ্টির পানি ক্ষেতে জমে থাকায় সোনালী ধান ঘরে তুলতে পারছেন না কৃষক। ধান ক্ষেত সংলগ্ন খালের মুখ এবং স্লুইজ গেট ঘের মালিকরা বন্ধ করে রাখায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ কৃষকদের। এ অবস্থায় বাঁধ কাটতে গেলে বারবার প্রভাবশালীদের বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

চারদিকে পাকা ধানের সোনালী পরশ। কৃষকের মুখে থাকার কথা গাল ভরা হাসি। কিন্তু খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা, আমিরপুর এবং ভান্ডারকোট ইউনিয়নের ১০ হাজার হেক্টর জমিতে এবার ইরি ধানের বাম্পার ফলন হলেও প্রায় ৩ হাজার কৃষকের মুখের হাসি কেড়ে নিয়েছে ক্ষেতে জমে থাকা বৃষ্টির পানি। একটি প্রভাবশালী মহল জেলা প্রশাসন থেকে লিজ নেয়ার দোহাই দিয়ে অবৈধভাবে ক্ষেত সংলগ্ন খালে বাঁধ দিয়ে পানি নিস্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে। পাশাপাশি পানি উন্নয়ন বোর্ডের স্লুইজ গেট নিজেদের ইচ্ছামতো বন্ধ ও খোলা রাখার কারণে ক্ষেতের পানি নামতে পারছে না।ইরি বিপণন কমিটির আহবায়কের দাবি, দ্রুত ক্ষেত থেকে পানি নিষ্কাশন করা না হলে জমির মালিক ও কৃষক উভয়েই ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।

দক্ষিণ অঞ্চল ইরি বিপণন কমিটি আহবায়ক আমিরুল ইসলাম সাদ্দাম বলেন, প্রভাবশালীরা যারা বাঁধ সৃষ্টি করে স্লুইজ গেটটা অচল করে দিয়েছে সেই ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হোক।অবশ্য জেলা প্রশাসক দ্রুত এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন।জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটা যাচাই করে ব্যবস্থা নিচ্ছি।বটিয়াঘাটার তিন ইউনিয়নে এবার প্রায় ৫০ হাজার মেট্রিক টন ধান উৎপাদন হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে